ফুচকা পছন্দ করেন না এমন মানুষ হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। তাই  ঈদের দিন মুখরোচক খাবার হিসেবে পরিবারের সবার জন্য তৈরি করতে পারেন মজাদার ফুচকা।


যা যা প্রয়োজনঃ 

  • ১ কাপ সুজি
  • ২-৩ টেবিল চামচ ময়দা
  • ১/৪ চা চামচ বেকিং সোডা
  • লবণ (পরিমাণ মত)
  • তেল (পরিমাণ মত)
  • পানি ( ডো তৈরি করতে )

পদ্ধতিঃ

সব শুকনো উপকরণ মিক্স করে নিয়ে তাতে প্রয়োজন মত পানি দিয়ে ডো তৈরি করুন।

খেয়াল রাখতে হবে যাতে ডো খুব বেশি নরম না হয়। ডো তৈরি করার সময় তেল দিবেন না।

একটি পরিষ্কার ভেজা কাপড় দিয়ে ২০-৩০ মিনিটের জন্য ডো ঢেকে রাখুন। ২০-৩০ মিনিট পর কাপড় সরিয়ে আবার একটু ময়ান করে নিন।

এবার একটি রোলিং বোর্ডে আটা ছিটিয়ে নিন। একটু পাতলা করে ডো বেলে নিয়ে আনুমানিক ২ ইঞ্চি করে গোল গোল অংশে কেটে নিন। কেটে নেয়া অংশগুলোও ভেজা কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখুন। কেননা, শুকিয়ে গেলে ভাঁজার সময় ফুলবেনা। এবার ডো থেকে কাটা গোল অংশগুলো ভেজে নিন। তেলে দেয়ার সাথে সাথেই ফুচকা ফুলে উঠবে এবং ফুচকায় সোনালি-বাদামি রঙ আসবে। একটি ভাজা হয়ে গেলে আরেকটি ভাজুন।একটি প্লেটে টিস্যু বিছিয়ে তাতে ফুচকা উঠিয়ে রাখুন এবং ঠাণ্ডা হয়ে গেলে এয়ারটাইট বাক্সে সংরক্ষণ করুন।

 

শুধু ফুচকাঃ

প্রথমে ২কাপ ময়দার সাথে পরিমাণমত পানি,লবণ ও সরিষা গুড়া একসাথে নিয়ে মোলায়েম ভাবে মাখিয়ে নিন।এরপর ছোট ছোট রুটির মত বেলে নিয়ে কেটে ফেলুন এবং ডোবা তেলে ভাজুন। ফুলে বাদামী রঙ হলে উঠিয়ে রাখুন। 

ফুচকার পুরঃ

৫-৬ ঘন্টা আগে ভিজিয়ে রাখা মটরের ডাল ও কুচি করে কাটা আলুর সাথে ২টেবিল চা চামচ করে আদা বাঁটা,রসুন বাঁটা,জিরা বাঁটা,গরম মশলা বাঁটা নিয়ে তেল দিয়ে ভালো করে রান্না করুন। এরপর রান্না করা ডালের সাথে ভাজা শুকনা মরিচের গুড়া,চটপটির মশলা,পেয়াজ কুচি,তেতুলের টক দিয়ে ভালো করে মাখিয়ে পুর তৈরী করুন।

তেতুলের টকঃ

১ ঘন্টা আগে ভিজানো তেতুলের সাথে কুচি করে কাটা ধনে পাতা,কুচি করে কাটা কাচা মরিচ ও বীটলবণ দিয়ে ভালো করে চটকিয়ে নিলেই হয়ে যাবে তেতুলের টক।

পরিবেশনঃ

এবার ভাজা ফুচকার ভিতর পুর ভরে ফুচকা তৈরী করুন এবং আলাদা ভাবে টক দিয়ে পরিবেশন করুন। কুচি করা ধনে পাতা,কুচি করা ডিম ফুচকার উপর ছড়িয়ে দিন।হয়ে গেল মজাদার ফুচকা রেসিপি।

(রেসিপি ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত)